Smartwatch

HONOR BAND 6 THE MI BAND KILLER REVIEW

Honor Band 6:

 

গত কয়েক বছর ধরেই মি ব্যান্ড এর পাশাপাশি বাজারে রিলিজ হয়ে আসছে honor band…

And এটা হচ্ছে honor এর latest offering: honor band 6…and previous generation থেকে upgrade হিসেবে এখানে থাকছে বেশ বড় সাইজের একটা অ্যামোলেড ডিসপ্লে, সবার প্রত্যাশিত Sp02 sensor, better strap and almost double battery.

 

চলুন তাহলে আনবক্সিং দিয়ে শুরু করা যাক, ব্যান্ড টা বেশ সিম্পল একটা প্যাকেজিং এর মধ্যে আসছে।

বক্সের উপরে কিছু চাইনিজ লেখা থাকলেও watch মধ্যে সবকিছুই english এ আছে এবং পিছনের দিকে দেখবেন একটা এন এফসি লোগো আছে, একচুয়ালি এর দুটো ভ্যারিয়েন্ট আছে একটাতে এনএফসি আছে অন্য টাতে নেই।

 

যাইহোক বক্স রেখে এবার ব্যান্ডের দিকে নজর দেয়া যাক। প্রথমেই আমার কাছে যে জিনিসটা নজরে পড়েছে তা হচ্ছে এর massive 1.47″ ডিসপ্লে।এটা এখনো পর্যন্ত আমার দেখা যেকোনো ফিটনেস ব্যান্ড এর সব থেকে বড় ডিসপ্লে। এবং অনেকেই আছেন যারা মি ব্যান্ড কিনতে চান না এ ছোটোখাটো ফর্ম ফ্যাক্টর এর জন্য। বাট honor band 6 তাদের কে একটা অপশন করে দিল যা একদিকে স্মার্টওয়াচ থেকে ছোট এবং হালকা অন্যদিকে মি ব্যান্ড এর মত দেখতে অতটা ও ছোট মনে হয় না।

মি ব্যান্ড ফোর এর সাথে side-by-side কম্পেয়ার করলে এটাকে অনেক বড় মনে হয় and অনেকেই আসলে এজন্য কনফিউজড হয়ে যায় যে এটাকে কি স্মার্ট ওয়াচ বলব নাকি ফিটনেস ব্যান্ড ।

 

তো, যাই হোক আমরা এই বিতর্কে না গিয়ে এর বিল্ড কোয়ালিটি নিয়ে একটু কথা বলি।শুরুতেই বলেছিলাম এতে যেই strap ব্যবহার করা হয়েছে সেটা আগে থেকে different…and তার কারণ হচ্ছে এখানে 18 টা হুকপয়েন্ট পয়েন্ট আছে যে জন্য ম্যাক্সিমাম মানুষের হাতে এডজাস্ট করে নেয়া যাবে।

আমার কাছে থাকা ব্যান্ড টির স্টেপ গুলো ব্ল্যাক কালার এর তবে চাইলে আরো দশটা কালার ভেরিয়েন্ট থেকে বেছে নিতে পারেন আপনার পছন্দের টা।

 

এখানে একটা ব্যাপার মাথায় রাখবেন এর শুধুমাত্র স্টেপগুলো চেঞ্জ করতে পারবেন কিন্তু  এর  যে বডি সেটা শুধুমাত্র ব্ল্যাক কালারের পাওয়া যায় যেটা দেখতে বেশ ভালোই। ম্যাটেরিয়াল হিসেবে এখানে ম্যাট ফিনিশ এর প্লাস্টিক ব্যবহার করা হয়েছে, লেফট সাইডে অনারের ব্র্যান্ডিং এবং ডান পাশে রেড একসেন্ট যুক্ত একটা বাটন দেয়া আছে আমার কাছে এটা বেশ পছন্দ হয়েছে।

মি ব্যান্ড এর ক্ষেত্রে আমরা দেখতাম একটা touch-sensitive বাটন দেয়া থাকতো, আমার কাছে পার্সোনালি এই ফিজিক্যাল বাটন বেশ ক্লাসি লাগে। মানে অনেক সময় mi band এ দেখা যায় টাচ ঠিকভাবে রেসপন্স করে না, সে দিক থেকে ফিজিক্যাল বাটন বেশ handy মনে হয়েছে আমার কাছে।

 

বাটনটা সিঙ্গেল প্রেস করলে টাইম দেখা যাবে, এরপর আরেকটা প্রেস করলে বিভিন্ন ওয়ার্কআউট mode পাওয়া যাবে এবং আবার প্রেস করলে হোমপেজে চলে আসবে। তবে, এই বাটনে প্রেস করে ডিসপ্লেটা অফ করা যায় না যেটা কোন cons না, শুধুমাত্র কেমন যেন একটা satisfaction পাওয়া যায় না। তবে যাই হোক ডিসপ্লেটা অফ করতে চাইলে জাস্ট পাম টাচ করলেই হবে অথবা একটা নির্দিষ্ট সময় পর এটাই এমনি বন্ধ হয়ে যাবে। সেটিংস থেকে ডিসপ্লে অপশনে গেলে এই টাইমটা চেঞ্জ করে নেয়া যাবে সর্বোচ্চ টোয়েন্টি সেকেন্ড পর্যন্ত।

এছাড়া উপর থেকে নিচে স্ক্রল করলে টানা পাঁচ মিনিট ডিসপ্লে অন করে রাখার একটা অপশন পাওয়া যাবে। একই সাথে এলার্ম সেট করতে পারবেন কিংবা ডু নট ডিস্টার্ব মুড অন করে নেয়া যাবে।

নিচে থেকে সেটিংস অপশনে গেলে অনেকগুলো অপশন পাওয়া যাবে স্ট্রেন্থ অপশনটা থেকে ভাইব্রেশন কন্ট্রোল করে সফট স্ট্রং কিংবা টোটালি অফ করে রাখা যাবে।

ওয়ার্কআউট ফিচারে নতুন করে অ্যাড করা হয়েছে অটো ওয়ার্কআউট ডিটেকশন ফিচার। এর ফলে আপনাকে আলাদা করে রানিন সুইমিং কিংবা বিভিন্ন ওয়ার্কআউট মোড সেট করতে হবে না। ব্যান্ডটি নিজেই বুঝে নেবে আপনি কোন সময়ে কি কাজ করছেন।

 

সত্যি বলতে এই সেটিংস টা অনেক কিছু সিম্পল করে দিয়েছে, অনেক সময় দেখা যেত ওয়ার্কআউট সেটিংস ঠিকঠাক মত না দিলে রিডিং একুরেট পাওয়া যেত না, তুমি এখন সেই ঝামেলাটা আর থাকলো না।

 

এবার হোম বাটনে চলে তাই, হোমে প্রেস অন্ড হল্ড করে রাখলে বেশকিছু ওয়াচফেইস পাওয়া যাবে যাদের মধ্যে অনেক ইনফরমেটিভ ওয়াচ ফেইস ও আছে আবার সিম্পল ওয়াচ ফেইসস আছে। চাইলে হুআওয়েই হেলথ অ্যাপ এর মাধ্যমে আরো কিছু ওয়াচফেইস ডাউনলোড করে নিয়ে যাবে।

Huawei health app এর মাধ্যমে আরো কিছু সুবিধা নিয়ে যাবে যেমন এর মাধ্যমে মিউজিক প্লে বা পাস করতে পারবেন, নেক্সট বা প্রিভিয়াস ট্র্যাকে যাওয়া যাবে কিংবা ভলিউম কন্ট্রোল‌ও করা যাবে ।

 

নিচ থেকে swipe করলে নোটিফিকেশন দেখা যাবে, এখানে বাংলা এবং ইংরেজি যেকোনো ভাষায় নোটিফিকেশন আসলেই তা পড়া যাবে তবে নোটিফিকেশনের রিপ্লাই এখানে করা যাবে না। একইরকম ভাবে কল আসলে কে কল করেছে এবং কোন নাম্বার থেকে কল এসেছে তা দেখা যাবে এবং শুধুমাত্র কল কেটে দেয়ার অপশন থাকছে which is not very convenient because অনেকেই চান কল আসলে কলটাকে সাইলেন্ট করে রাখতে, but unfortunately call silent এর কোন অপশন এখানে থাকছে না।

 

এবারের হেলথ রিলেটেড ফিচার নিয়ে কথা বলি। ভিডিও শুরুতেই বলেছিলাম এখানে ব্লাড অক্সিজেন লেভেল পরিমাপ করার একটা সেন্সর দেয়া হয়েছে। এ সেন্সর এর মাধ্যমে আপনার ব্লাডে কতটুকু অক্সিজেন আছে তা মাপা হয়। এটা স্পেশালি তখন কাজে লাগে যখন পাহাড়ে ঘুরতে যান কিংবা কাজ করে ক্লান্ত হয়ে পড়েন। এই সেন্সরের মাধ্যমে ব্যান্ডটা স্ট্রেস তেস্ট করে আপনাকে জানিয়ে দেবে আপনার এখন রেস্ট নেওয়া প্রয়োজন নাকি কাজ করতে পারবেন। সত্যি বলতে এই জিনিসটা আমাকে অনেক হেল্প করেছে, কারণ আগে দেখা যেত কোন রুটিন মেনটেন না করেই আমি কাজ করে যাচ্ছি, কিন্তু এই ব্যান্ডটা পড়ে থাকা কালীন যখন একটু শরীরের ক্লান্তি অনুভব করছিলাম তখন ওয়াচ টা রেস্ট নেয়ার জন্য বারবার জানান দিচ্ছিল। এছাড়া রাতে কতক্ষণ ঘুমালাম অন্যান্য ব্যান্ডের মত এখানেও তা শো করছিল, কিন্তু এখানে যেই এক্সট্রা ব্যাপারটা ছিল তা হচ্ছে আপনার আরও কতক্ষণ ঘুমানো দরকার নোটিফিকেশন দিয়ে জানিয়ে দেয় যেটা proper help maintenance এর জন্য খুবই দরকারী স্পেশালি যারা রাত জেগে গেম খেলেন কিংবা কাজ করেন।

 

শুধুমাত্র এই কাজেই না 24/7 heart rate measurement ও একটা গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে আজকাল। আমার ক্ষেত্রে আমি বলতে পারি ম্যাক্সিমাম টাইমই আমার হার্ট রেট 90bpm এর উপরে থাকে যা খুব একটা ভালো লক্ষণ না…তাই, গত কিছুদিন ধরে এক্সারসাইজের পাশাপাশি কিছু খেলাধুলাও করছি যা একমাত্র এই স্মার্ট ব্যান্ডটির জন্যই হয়েছে।

 

সবশেষে একটা ফাইনাল ডিসিশনে আসা যাক, স্মার্ট ব্যান্ড আপনাদের কেনা ঠিক হবে কিনা। বর্তমানে

এই প্রাইসে যেই ফিত্নেস রিলেটেড স্মার্টওয়াচ পাবেন পাওয়া যায় সেগুলোর মধ্যে দুটো হচ্ছে imilab kw66 and mibro smartwatch..

 

এখন, kw66 দেখতে খুব ভালো হলেও এর মেইন প্রবলেম হচ্ছে এর ডিসপ্লে ব্রাইটনেস একটু খারাপ পাশাপাশি বেশ কিছু ফিচার মিসিং আছে। আবার mibro smartwatch টা দেখতেও ভাল ব্রাইটনেস ও ঠিক আছে কিন্তু ডিসপ্লে কোয়ালিটি টপ নচ না আবার কিছু ফিচারো কম আছে।

সবকিছু মিলিয়ে Honor band 6 বেশ ভালো স্মার্টওয়াচ টাইপের লুক আছে, এর থেকে ৪-৫গুন দামি honor magic watch এর প্রায় সবগুলো ফিচার ই আছে, ডিসপ্লে কোয়ালিটি ও খুব ভালো, ব্যাটারি ব্যাকআপও 2 সপ্তাহের মত পাওয়া যায়। সবকিছু মিলিয়ে এই প্রাইসে এটাকে আমার বেস্ট মনে হয়েছে। তার পরেও লুকের দিক দিয়ে কেউ কেউ হয়তো এটাকে প্রেফার নাও করতে পারেন। তাই, ফাইনাল ডিসিশন আপনাদের হাতেই থাকল।

FOR PURCHASE CLICK HERE

Back to list

Leave a Reply

Your email address will not be published.